জাতীয় পরিচয় পত্র বা NID Card Download ও নতুন ভোটার নিবন্ধন প্রক্রিয়া

জাতীয় পরিচয় পত্র বা NID Card Download ও নতুন ভোটার নিবন্ধন প্রক্রিয়া: আপনি যদি ভোটার নিবন্ধন করে থাকেন তাহলে ভোটার নিবন্ধন স্লিপ নম্বর বা NID নম্বর দিয়ে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র বা NID Card Download করতে পারবেন। আপনি কিভাবে আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের সাহায্যে অনলাইন থেকে NID কার্ড বা ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করবেন তা আজকে বিস্তারিত জানাবো। এছাড়াও আপনার হারিয়ে যাওয়া এনআইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্রও এই প্রক্রিয়া অনুসরণ করে  অনলাইন থেকে NID Card Download করতে পারবেন। 

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড nid Card Download 

বাংলাদেশী নাগরিকদের ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য নিচে প্রদত্ত প্রক্রিয়া অনুসরণ করুন।

nid Card Download করার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র: 

  • ভোটার নিবন্ধন স্লিপ নম্বর অথবা NID নম্বর
  • নিজ জন্ম তারিখ
  • বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা (বিভাগ, জেলা, উপজেলা)
  • একটি সচল মোবাইল নম্বর (NID OTP Verification)
  • একটি এন্ড্রয়েড স্মার্ট ফোন (NID Face Verification)

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম বা New NID Card Download 2023

  • প্রথমে ভিজিট করুন services.nidw.gov.bd/nid-pub/claim-account
  • এখন আপনার ভোটার নিবন্ধন স্লিপ নম্বর বা জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর এবং জন্ম তারিখ লিখুন;
  • ক্যাপচা পূরণ করে সাবমিট করুন;
  • আপনার বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা সিলেক্ট করুন;
  • মোবাইল নাম্বার দিন।
  •  ’বার্তা পাঠান’ ক্লিক করুন এবং প্রাপ্ত OTP প্রবেশ করান;
  • মোবাইলে NID Wallet App ইনস্টল করে ফেইস ভেরিফিকেশন QR কোড Scan করুন;
  • ফেইস ভেরিফিকেশ করুন এবং NID একাউন্টের Password set করুন;
  • লগইন করার পর ডাউনলোড লিংকে ক্লিক করে NID card download করুন।

জাতীয় পরিচয় পত্র বা NID Card Download ও নতুন ভোটার নিবন্ধন প্রক্রিয়া

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন ভোটার আইডি কার্ড চেক বা নতুন ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করা কঠিন কাজ নয়। উপরের ধাপগুলো সঠিকভাবে অনুসরণ করে সহজেই আপনি আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র বা এনআইডি কার্ডটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

READ MORE: নতুন ফেসবুক চালু করুন খুব সহজে ২০২৩

nid check

আপনার ভোটার নিবন্ধন হয়েছে কিন্তু জাতীয় পরিচয় পত্র পাননি

আপনারা যারা ভোটার হিসাবে নিবন্ধিত হয়েছেন কিন্তু জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর পাননি তারা রেজিস্টার মেন্যুতে (Claim Account) গিয়ে আপনার কাছে রক্ষিত ফর্ম নম্বর এবং আপনার জন্ম তারিখ, ক্যাপচা ও প্রয়োজনী তথ্য দিয়ে অনলাইন সেবার জন্য রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করুন। পরবর্তীতে লগইন মেন্যুতে গিয়ে আপনার ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে ডাউনলোড মেন্যুতে গিয়ে আপনার পরিচয়পত্র কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

নতুন জাতীয় পরিচয় পত্র

জাতীয় পরিচয়পত্র হালনাগাদ একটি চলমান প্রক্রিয়া। যিনি বাংলাদেশের নাগরিক কিন্তু এখনও নিবন্ধিত হননি,আপনার বয়স যদি ১০ বছর বা বেশি হয়ে থাকে কিন্তু এখনও ভোটার হিসেবে নিবন্ধিত হননি তাহলে অনলাইন এ ফর্ম পূরণ করে আপনার সিডিউল মোতাবেক সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে বায়োমেট্রিক প্রদান করুন। বায়োমেট্রিক প্রদানের সময় আপনার কিছু সংযুক্ত কাগজ পত্র প্রয়োজন হবে, যা নিন্মরুপ-

  • অনলাইনে পূরণকৃত ফর্মের প্রিন্ট কপি
  • এস.এস.সি সনদ -(বয়স প্রমাণের সনদ)
  • জন্ম নিবন্ধন -(বয়স প্রমাণের সনদ)
  • পাসপোর্ট / ড্রাইভিং লাইসেন্স / টি.আই.এন -(বয়স প্রমাণের সনদ)
  • ইউটিলিটি বিলের কপি/বাড়ী ভাড়ার রশিদ/হোল্ডিং ট্যাক্স রশিদ – (ঐ এলাকায় সচরাচর বসবাস করেন এরুপ কোন প্রমাণ)
  • নাগরিকত্বের সনদ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • বাবা, মা, স্বামী/স্ত্রীর এনআইডি কার্ডের কপি(প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)

আপনার বয়স যদি চলতি বছরের ১ জানুয়ারী বা তার পূর্বে ১৮ বছর হয়ে থাকে তাহলে আপনি ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবেন। 

NID REGISTRATION

নতুন ভোটার নিবন্ধন প্রক্রিয়া nid gov bd

  • অনলাইন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি সঠিকভাবে ভোটার রেজিস্ট্রেশন ফর্ম পূরণ করতে পারবেন
  • আপনি ইতোমধ্যে ভোটার হয়ে থাকলে পুনরায় আবেদন করার প্রয়োজন নেই। নিবন্ধিত ব্যাক্তি পুনরায় আবেদন করলে সেটি দন্ডনীয় অপরাধ
  • নতুন ১৮ বয়সের অধিক, প্রবাসী বা বাদপড়া ভোটারগণ এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিবন্ধন করতে পারবেন
  • বিস্তারিত জানার জন্য এখানে ক্লিক করুন।

ধাপসমূহঃ

  • ধাপে ধাপে সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করুন
  • নিজের পূর্ণনাম ছাড়া সকল তথ্য বাংলায় ইউনিকোডে পুরণ করুন
  • সকল ধাপ সম্পন্ন হবার পরে প্রিভিউএর মাধ্যমে সকল তথ্য পুনর্বার যাচাই করে নিন
  • পিডিএফ ফাইল তৈরি করে সেটি প্রিন্ট করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ নিকটস্থ নির্বাচন অফিসে জমা দিন
  • আপনার প্রদত্ত তথ্যাদি যাচাই এবং ঠিকানা যাচাইয়ের পরে তথ্যাদি সঠিক নিশ্চিত হলে আপনার নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শুরু করা হবে
  • নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে আপনার মোবাইলে SMS পাঠানো হবে, এর পর অনলাইন থেকেই একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন।

তিনটি ধাপে (ব্যক্তিগত তথ্য, অন্যান্য তথ্য, বর্তমান ঠিকানা ও স্থায়ী ঠিকানা) নিবন্ধন ফর্ম পূরণ করতে হবে। আংশিক ফর্ম পূরণ করে তা সংরক্ষণ করে পরবর্তীতে বাকি অংশটুকু পূরণ করার সুবিধা রয়েছে। এর জন্য অন্তত একটি ধাপ সম্পন্ন করতে হবে।

About admin

Check Also

GPF Fund Balance

জিপিএফ ফান্ড এর টাকা দেখুন ঘরে বসে | How check GPF Fund Balance

আজ আমাদের পোস্টে উল্লেখ করেছি কিভাবে আপনি আপনার মোবাইল থেকে ঘরে বসে আপনার জিপিএফ ফান্ড …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *