সামাজিক মাধ্যমে বিরূপ মন্তব্যকারী শিক্ষকদের শাস্তির আওতায় আনার নির্দেশ 2023

সামাজিক মাধ্যমে বিরূপ মন্তব্যকারী শিক্ষকদের শাস্তির আওতায় আনার নির্দেশ দিয়ে পত্র জারি করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ( directorate of primary education )। উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত মহাপরিচালক
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। রমজান মাসের বিদ্যালয়ে পাঠদান ও সামাজিক মাধ্যমে বিরূপ মন্তব্য থেকে বিরত থাকতে উদ্বুদ্ধকরন সভার কার্যবিবরণী- 

সভাপতি : অতিরিক্ত মহাপরিচালক
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর
সভার তারিখ ও সময় : ৩০ মার্চ,২০২৩ , সকাল ১০ ঘটিকা
স্থান অতিরিক্ত মহাপরিচালকের সম্মেলনকক্ষ , ৬ ষ্ঠতলা , প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

বিরূপ মন্তব্যকারী শিক্ষকদের শাস্তির আওতায় আনার নির্দেশ

মাঠ পর্যায়ের বিভাগীয় উপপরিচালক ও জেলা পর্যায়ের জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারগন সভায় অংশগ্রহণ করেন । পবিত্র মাহে রমাজানের শুভেচ্ছা ও ডাঁচুয়ালি ( জুম ) সংযুক্ত সকলকে স্বাগত জানিয়ে সভাপতি সভার কার্যক্রম শুরু করেন । সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রমজানের ১৫ দিন বা ৯ কর্মদিবস অর্থাৎ ৬ ই এপ্রিল পর্যন্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় সমূহ অতিমারি করোনার কারনে বিদ্যালয়ের স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় লানিং লস রিকোভারী করার জন্য খোলা রাখা হয়েছে । এই খোলা রাখার ফলে এর সাথে সংশ্লিষ্ট সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক গণ ও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাগণের মাঝে কিছুটা বিরূপ মনোভাবের সৃষ্টি হয়েছে । এই বিরূপ মনোভাবের প্রকাশ ঘটছে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের মতামত বহিঃ প্রকাশের মাধ্যমে । শিক্ষকদের এ মতামত বহিঃ প্রকাশ সরকারি কর্মচারী আচরনবিধির পরিপন্থী ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তর থেকে এ বিষয়ে সময় সময় বিভিন্ন দিক নির্দেশনা / পরিপত্র জারি করা হয়েছে । তারপরও দেখা যাচ্ছে আমাদের প্রাথমিক শিক্ষায় যারা কর্মরত আছেন তারা বুঝে হোক আর না বুঝে হোক , জ্ঞানতো হোক বা উদ্দেশ্য পূর্ণভাবে হোক বা উদ্দেশ্যবিহীন ভাবে হোক তারা বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে তাদের মন্তব্য প্রদান করে যাচ্ছে । বিষয়টি সরকারে বিভিন্ন মহলে তীব্র অসন্তোষ এর জন্ম দিয়েছে । এই বিষয়টি সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো ও মাঠ পর্যায়ে এ বিষয়ে মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করার জন্য আজকের এই সভা আয়োজন করা হয়েছে মর্মে সভাপতি মহোদয় জানান ।

ডিডি , ডিপিইও ও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে এই সভা করার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে , আপনারা হচ্ছেন প্রাথমিক শিক্ষার মূল চালিকা শক্তি । আপনাদের মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষা মাঠ পর্যায়ে সুচারুভাবে পরিচালিত হচ্ছে । আজকের সভার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিভাগীয় উপপরিচালকগণ ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারদের মাধ্যমে সকল সুপারেন্টেডেন্ট উপজেলা শিক্ষা অফিসার , সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার ইন্সট্রাক্টর, সহকারি ইন্সট্রাক্টর মাধ্যমে তৃণমূল পর্যন্তএই বিষয়ে সরকারের অসন্তোষ বিষয়টি যাতে পৌছানো হয় তা নিশ্চিত করা এবং সককারি কর্মচারির আচরণ বিধি মেনে চলার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অধিকরত সচেতন করা ।

প্রাথমিক শিক্ষার মাঠ পর্যায়ের ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে যারা নিয়োজিত আছেন তারা অত্যন্ত দ্রুততম সময়ের মধ্যে ক্লাষ্টার পর্যায়ে সকল শিক্ষক কে বিষয়টি অবহিত করতে হবে এবং ৬ ই এপ্রিল পর্যন্ত শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করা ।

মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে বিগত ২/৩ মাসে প্রাথমিক শিক্ষার ভাবমূর্তি , মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে মান ইজ্জত , সম্মান বৃদ্ধিপায় এমনসব কর্মকান্ড এবং রাষ্ট্রীয়ভাবে যে সকল কাজের প্রতিফলন ঘটে সে সকল কর্মকান্ডের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকতে হয়েছে । সকলের সামগ্রিক চেষ্টার ফলেই আজকে বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষা আর্ন্তজাতিক সুনাম ও মান অর্জনের দিকে ধাবিত । এই রকম অবস্থা কোন ভাবেই কাম্য নয় অল্প কিছু সংখ্যক লোকের খামখেয়ালিপনা , কিছু বুদ্ধিহীনতা , কিছু অবিবেচক কাজের জন্য প্রাথমিক শিক্ষার ভাবমূর্তি ক্ষুন্নহয়। আমাদের কাজের গতিশীলতা বাদাগ্রস্থ হয় ।

Read More: প্রাথমিক শিক্ষকদের আইসিটি প্রশিক্ষণ ম্যানুয়াল ডাউনলোড PDF 2023

আমরা সবাই জানি বর্তমান দেশের আর্থ – সামাজিক অবস্থাটা কি ? বাংলাদেশ ১৯৭১ সালে কোথায় ছিল , ধাপে ধাপে বর্তমান অবস্থা কোথায় । বিশেষ করে ২০১০ থেকে বাংলাদেশের এজেন্ডা ভিত্তিক অগ্রগতি লক্ষণীয় । যখন কর্মকর্তাগণ মাঠ পর্যায়ে কথা বলবেন তখন সরকারের উন্নয়নের চিত্র সামগ্রীক অবস্থা তুলে ধরতে হবে । করোনা অতিমারী এবং বিশ্বের সামগ্রীক অবস্থার প্রেক্ষিতে দেশের মূল্যস্ফীতি কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং যেভাবে আমাদের অগ্রগতি কথা তা কিছুটা বাধাগ্রস্থ হয়েছে। সামগ্রীক অর্থনৈতিক অবস্থার কারণে সকলের মেজাজ মর্জি ঠিক রাখা কঠিন । সরকার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে পূর্নসামর্থনুয়ায়ি কাজ করে যাচ্ছে ।

সরকারের আয় বৃদ্ধি না হলে ব্যয় বাড়ানো সম্ভব না বিধায় সরকার ব্যয় সংকোচন নীতি গ্রহণ করেছেন । পত্র পত্রিকার মাধ্যমে ও সরকারের নীতি আদেশ গুলি জানা যাবে এবং তদনুয়ায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে । স্ব স্ব উদ্দেশ্যে নিজের মেধা মাননুয়ায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।যত অসুবিধায় থাকুক না কেন আমাদের কার্যক্রমে সরকার তথ্য মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তর কোন বিব্রতকর অবস্থায় না পড়ে সে বিষয়ে সকলকে সচেতন থাকতে হবে ।

সভার সিদ্ধান্ত সমূহ

অত : পর সভাপতি মহোদয় নিম্নবর্নিত দিক নির্দেশনা সমুহ প্রদান করেন :

  • মাঠ পর্যায়ের যে সকল শিক্ষক / কর্মকর্তা ফেসবুক পেজে সরকার বা রাষ্ট্রের উন্নয়ন কর্মকান্ডের ভাবমূর্তি ক্ষুন্নহয় এমন কোন পোষ্ট ছবি , অডিও বা ভিডিও আপলোড , কমেন্ট , লাইক , শেয়ার করে বা জাতীয় ঐক্য ও চেতনার পরিপন্থি কোন রকম তথ্য উপাত্ত যা জনমনে অসন্তোষ বা অপ্রীতিকর মনোভাব সৃষ্টিকরতে পারে এমন কোন বিষয় লেখা অডিও বা ভিডিও ইত্যাদি আপলোড বা শেয়ার করে এবং ভিত্তিহীন , অসত্য ও অশ্লীল তথ্য প্রচার এবং অন্য কোন রাষ্ট্রবা রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য সম্বলিত কোন পোষ্ট ছবি , অডিও বা ভিডিও আপলোড কমেন্ট , লাইক , শেয়ার করে থাকে তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি প্রদান নিশ্চিত করতে হবে ।
  • ডিপিইও গণ সারপ্রাইজ ডিজিটে উপজেলায় যাবেন এবং উপজেলা শিক্ষা অফিসারদের সাথে ভার্চুয়াল সভা করবেন ।
  • উপজেলা শিক্ষা অফিসার / সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার গণ ক্লাষ্টার পর্যায়ে মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করবেন ।
  • সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার গণ বিদ্যালয়ের সামগ্রীক অবস্থা সম্পর্কে সজাগ দৃষ্টি রাখবেন ।
  • জরুরী প্রয়োজন না হলে অনুমোদন ছাড়া কর্মস্থল ত্যাগ না করা ।
  • শিক্ষকগণ যার যার কর্মস্থলকে পবিত্র স্থান হিসেবে বিবেচনা করে ,যার যার উপর অর্পিত দায়িত্ব সার্বিকভাবে পালন করতে হবে ।
  • সকল শিক্ষক – কর্মচারী একত্রিত হয়ে সম্মিলিত ভাবে কাজ করতে হবে। 
  • আমাদের অনেক সমস্যা আছে । চাকুরীগত কারণে , সুযোগ সুবিধাজনিত কারণে বা ব্যক্তিগত অসুবিধার কারনে আমাদের অনেক অসুবিধা আছে । তা সত্বেও সকল কিছু বিবেচনায় নিয়ে আন্তরিকতা , সহমর্মিতা , নিষ্ঠার সাথে প্রাথমিক শিক্ষার জন্য কাজ করতে হবে।

সভায় আর কোন আলোচনা না থাকায় সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন ।

সৈয়দ মামুনুল আলম
অতিরিক্ত মহাপরিচালক ( অতিরিক্ত সচিব )

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে প্রতিটি সরকারি শিক্ষককে আরো দায়িত্বশীল ভুমিকা পালন করতে হবে। প্রাথমিক শিক্ষার সকল খবর জানতে ভিজিট করুন DPE NEWS ওয়েবসাইটে।

About admin

Check Also

IPEMIS এ অনুমোদিত শিক্ষক পদ সংখ্যা সংশোধন

প্রাথমিকের IPEMIS এ অনুমোদিত শিক্ষক পদ সংশোধন করার পদ্ধতি

IPEMIS এ অনুমোদিত শিক্ষক পদ সংশোধন করবেন কিভাবে?  এটি নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় পড়ে যান।  আপনার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *