প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রোজার ছুটি নিয়ে সিদ্ধান্ত

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে বৃহস্পতি বা শুক্রবার থেকে শুরু হবে পবিত্র রমজান মাস। এ উপলক্ষ্যে স্কুল ও কলেজ বন্ধ থাকলেও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা থাকবে রমজানের মাঝামাঝি অর্থাৎ ৭ এপ্রিল পর্যন্ত। তবে, প্রাথমিক বিদ্যালয় রমজান মাসে বন্ধ রাখার দাবি জানিয়েছেন প্রাথমিকের শিক্ষকরা।

শিক্ষকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ নানাভাবে এ দাবির পক্ষে সরব হয়েছেন‌। সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অভিন্ন ছুটি নির্ধারণের দাবি জানাচ্ছে শিক্ষক সংগঠনগুলো। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ছুটি সমন্বয় করতে সংগঠনের বাইরেও অনেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে (ডিপিই) লিখিতভাবে আবেদন করেছে।

দুপুরে অধিদপ্তরের পলিসি ও অপারেশন শাখার পরিচালক মনীষ চাকমা বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রোজার ছুটি আগামী ৭ এপ্রিলই শুরু হচ্ছে। ছুটি বাড়ানোর বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। যারা বলছেন আলোচনা হচ্ছে তারা না জেনে বলছেন। রোজার ছুটি ১৫ রমজানই শুরু হচ্ছে।

ছুটির বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রশাসন শাখার সহকারী পরিচালক মো. নজরুল ইসলাম দুপুরে বলেন, প্রাইমারি স্কুলগুলোতে রোজার ছুটি শুরু হচ্ছে ৭ এপ্রিল থেকেই। প্রথম রোজা থেকে ছুটি দেয়ার কোনো সিদ্ধান্ত বা আলোচনা নেই। শিখন ঘাটতি পূরণের রোজার কিছু অংশ স্কুলগুলো খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

রমজানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সময়সূচী -২৩/০৩/২৩

রমজানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সময়সূচি ০৯টা-৩.৩০টা

ঢাকা, ২৩ মার্চ, ২০২৩

পবিত্র রমজান মাসে ১৫ (পনের) রমজান পর্যন্ত ০৯ (নয়) কার্য দিবস স্কুল খোলা থাকবে।

মহানগর, ডবল সিফট ও সিঙ্গেল সিফট সকল স্কুলের সময়সূচি সকাল ০৯টা- বিকেল ৩.৩০ টা নির্ধারণ করা হয়েছে।

আজ সচিবালয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সমন্বয় সভায় এ সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ।

মাহবুবুর রহমান তুহিন

সিনিয়র তথ্য অফিসার

প্রাগম

০১৫৫২৩৭৫০০৯, ০১৮২৬৬৬৭৭০০

Read More: পবিত্র রমজান উপলক্ষে প্রাথমিক শিক্ষক শিক্ষার্থীদের ভাবনা

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ শামসুদ্দীন গণশিক্ষা সচিব বরাবর লিখিত আবেদনে বলেন, রমজানে প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৪ দিন খোলা থাকবে। চৈত্রের প্রচণ্ড গরমে রোজা রেখে ক্লাস নেওয়া শিক্ষকদের খুবই কষ্টসাধ্য হবে। ৮০ ভাগ নারী শিক্ষক সেহরি প্রস্তুত করে সংসারের কাজ করেন স্কুলে আসেন। সারাদিন স্কুল শেষে আবার ইফতারের সকল প্রস্তুতি ও সংসার পরিচালনা খুবই কষ্টকর হবে। তাছাড়া রমজান হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জন্য পবিত্র কুরআন শিক্ষার উপযুক্ত মাস।

Read More: এক বছরের মাথায় ৯ম ও ১০ শ্রেণীর দুই ছাত্রীকে বিয়ে করলেন স্কুল শিক্ষক

এ মাসে শুদ্ধ করে কুরআন শিখতে শিক্ষার্থী ১ থেকে ২৭ রমজান পর্যন্ত বিভিন্ন কুরআন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ভর্তি হয়। শিশুরা সাধারণত বিদ্যালয়ে না এসে কুরআন শিক্ষাকেন্দ্রে চলে যায়। তাই পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে ধর্মীয় অনুভূতির প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো বন্ধ রাখবেন এটাই ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবকদের প্রত্যাশা।

আবেদনে আরও বলা হয়, রমজান মাসে সকালে গাড়ি, সিএনজি ও রিকশা কম চলাচল করায় দূরের বিদ্যালয়গামী শিক্ষকদের যানবাহন পেতে খুবই সমস্যা হবে। সকাল বেলা রাস্তাঘাট নিরিবিলি থাকার ফলে নানা ধরনের ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপ্রীতিকর ঘটনার শিকার হতে পারেন। এসব বিষয় বিবেচনা নিয়ে প্রথম রোজা থেকে স্কুল বন্ধ রাখার দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (ডিপিই) মহাপরিচালক শাহ রেজওয়ান হায়াত বলেন, করোনায় পিছিয়ে পড়ায় শিখন ঘাটতি কাটাতে এবার রোজার ছুটি কমিয়ে আনা হয়েছে। শিক্ষকদের একাধিক সংগঠনের নেতাদের লিখিতভাবে রোজায় ছুটির দাবি জানিয়েছেন।

তবে এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রোজার ছুটি নিয়ে মন্ত্রণালয়ের একাধিক আলোচনা হয়েছে তবে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। আজ এ বিষয়ে জানা যেতে পারে। তবে অধিকাংশ কর্মকর্তারাই অন্যান্য শিক্ষা দপ্তরের সঙ্গে সমন্বয় করে ছুটি দেওয়ার পক্ষে।

এ বিষয়ে এই মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রমজানের ১৫ দিন পর্যন্ত ক্লাস চলবে। এরপর ছুটি হবে। সরকারি ৬৫ হাজার স্কুলের ক্ষেত্রেই এই ছুটি প্রযোজ্য। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন সংযুক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় এই ছুটির আওতায় পড়বে না।

এ পরিস্থিতিতে শিক্ষকরা রোজায় প্রাথমিক বিদ্যালয় ছুটি দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। শিক্ষকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ নানা উপায়ে এ দাবির পক্ষে সরব হয়েছেন। সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিন্ন ছুটি নির্ধারণের দাবি জানাচ্ছে শিক্ষক সংগঠনগুলো।

২০২৩ সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা

২০২৩ সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা অনুমোদন করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। আগামী বছর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫৪ দিন ছুটি থাকবে। এছাড়া শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি।

বৃহস্পতিবার অধিদপ্তর থেকে ছুটির তালিকা মাঠ পর্যায়ে পাঠানো হয়েছে। অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানতে চাইলে প্রাক-প্রাথমিক শাখার শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মাহফুজুর রহমান জুয়েল দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে জানান, বৃহস্পতিবার ছুটির তালিকা অনুমোদন করে মাঠ পর্যায়ে পাঠানো হয়েছে। ২০২৩ সালে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫৪ দিন ছুটি থাকবে। শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি।

তিনি আরও বলেন, ২০২৩ সালে শুক্রবার ও শনিবার বেশ কয়েকটি সরকারি ছুটি থাকায় ছুটি কিছুটা কমছে বলে মনে হলেও ছুটি আগের মতোই রয়েছে।

২০২৩ সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা
২০২৩ সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা

About admin

Check Also

IPEMIS এ অনুমোদিত শিক্ষক পদ সংখ্যা সংশোধন

প্রাথমিকের IPEMIS এ অনুমোদিত শিক্ষক পদ সংশোধন করার পদ্ধতি

IPEMIS এ অনুমোদিত শিক্ষক পদ সংশোধন করবেন কিভাবে?  এটি নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় পড়ে যান।  আপনার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *